ওজন কমানোর খাবার – Diet chart for weight loss for female in Bangla

ওজন কমানোর খাবার

প্রশ্নঃ ওজন কমানোর খাবার হিসাবে আমি টম্যাটো সস খেতে পারি কি ?

উত্তরঃ টম্যাটো,পেয়াজ, রসুন, চিনি, গরম মশলা, সোডিয়াম, বেঞ্চায়েট এবং এ্যাসিটিক এ্যাসিডের মিশ্রণে টম্যাটোর সস তৈরি হয়।  মোটা ব্যাক্তিরা টম্যাটোর সস খেতে পারেন .. কারণ এতে ফ্যাট থাকে না।  আপনি যদি বাড়িতে টম্যাটো সস তৈরী করে নেন, তবে ভালো হয় .. কারণ এতে আপনার শরীর কোন ভাবেই ক্ষতিগ্রস্থ হয় না।

 

প্রশ্নঃ ওজন কমানোর খাবার হিসাবে আমি অন্যান্য চাটনী খেতে পারি কি ?

উত্তরঃ নারকেলের চাটনী ছাড়া অন্যান্য সমস্ত চাটনী স্থূল ব্যক্তিরা খেতে পারেন … কারণ নারকেলে প্রায় চল্লিশ ভাগ তেল থাকে।  মোটা ব্যক্তিরা নিম্ন লিখিত চাটনগুলো ম জা করে খেতে পারেনঃ

ধনেপাত এবং পুদিনাপাতার চাটনীঃ  এক আটি ধনেপাতি, আধ আটি পুদিনা পাতা, সামান্য ছোলা এবং গোটা বিউলির ডাল(ভাজা) দুটি কাঁচা লঙ্কা, নুন স্বাদানুসারে, দুই চামচ স্কীমড মিল্ক থেকে তৈরি দই। সমস্ত উপকরণগুলি একত্রে মিক্সিতে পিষে নিন।

কারীপাতার চাটনীঃ এক  আটি কারী পাতা, সামান্য বিউলির ডাল (ভাজা) দুইটি শুকনো লঙ্কা, টম্যাটো,নুন স্বাদানুসারে, সামান্য জল ‍দিয়ে সমস্ত উপকরণগুলি একত্রে মিক্সিতে পিষে নিন। এটিকে ভাতের সাথেও খেতে পারেন।

গাজরের চাটনীঃ সেদ্ধ করা বা রান্না করা গাজর এক কাপ,  দুইটি লঙ্কা এবং নুন স্বাদানুসারে। সমস্ত উপকরণগুলিকে ভালো করে পিষে নিন। যে কোন স্ন্যাক্সের সাথে খেতে পারেন।

প্রশ্নঃ আমি আচার খেতে পারি কি ?

উত্তরঃ হ্যাঁ, আপনি আচার খেতে পারেন .. কিন্তু তাতে তেল থাকলে চলবে না।  টাটকা ফল বা সবজীর আচারে তেল ঢাললে সেটি সহজে খারাপ হয় না। যাঁরা কম নুন খান, তারা আচারের  থেকে দূরেই থাকবেন।  কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে সোডিয়াম থাকে আচার বা চাটনী থেকে অনেক লোকের এ্যালার্জী  হয়।  মোটা ব্যক্তির তেল বিহীন লঙ্কার আচার, আমলকীর আচার,আম, লেবু, বা মিক্স সবজীর আচার খেতে পারেন।  এগুলি ভিনিগারে বা সোডিয়াম বেঞ্চায়েট ঢেলে প্রস্তুত করা হয়ে থাকে। মনে রাখবেন যে, এটা বেশী দিন রাখবেন না ..  কারণ এগুলি শীঘ্রই খারাপ হয়ে যায়।

 

প্রশ্নঃ আমি জ্যাম খেতে পারি কি ?

উত্তরঃ না, আপনি জ্যাম খেতে পারবেন না।  জ্যাম চিনিরই আরেক রূপ হয়।  এক চামচ জ্যামে চল্লিশ ক্যালোরী থাকে। জ্যমে সামান্য পরিমাণ  ভিটামিন এবং প্রোটিন থাকে।  সেদ্ধ করার সময় ভিটামিন সি এর বেশীর ভাগই নষ্ট হয়ে যায়।

প্রশ্নঃ আমি জেলি খেতে পারি কি ?

উত্তরঃ না, আপনি জেলি খেতে পারেন না।  এটি ফলের জুস থেকে তৈরি হয়। এটি জমানোর জন্য জিলেটিন ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এতে চিনিও দেওয়া হয়।  এই কারেণে এর থেকে দূরে থাকাই শ্রেয়।