মশলা

মশলা

প্রশ্নঃ আমি আমার তরকারীতে গরম মশলা দিতে পারি কি ?

উত্তরঃ তরকারীতে গরম মশলা দিতে কোন বাধা নেই।  তবে কোন ব্যক্তি যদি গ্যাসের অসুখে ভোগেন বা তার  যদি আলসার হয়ে থাকে, তবে গরম মশলা তার জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকারক।

প্রশ্নঃ আমি রান্নায় শুকনো লঙ্কা বা লঙ্কার গুড়ো ব্যবহার করতে পারি কি ?

উত্তরঃ হ্যাঁ, আপনি লঙ্কা খেতে পারেন.. কিন্তু বেশী পরিমাণে লঙ্কা খাবেন না, এর ফলে জ্বলুনির সৃষ্টি হতে পারে। খাদ্যে স্বাদ বৃদ্ধি করার জন্য ঝাল এবং সুস্বাদু হয়ে ওঠে। মোটা বা বেশী ওজনের ব্যক্তি খাদ্যে লঙ্কা ব্যবহার করতে পারেন।

প্রশ্নঃ সাম্বর মশলা ব্যবহার করেত পারি কি ?

উত্তরঃ  আপনি ঘরে প্রস্তুত সাম্বর মশলা  ব্যবহার করতে পারেন। বাজারে যে সাম্বর  মশলা পাওয়া যায়, তাতে কিছু মশলা পেশার আগে তা ভেজে নেওয়া হয়।  ঘরে আপনি মশলা না ভেজে পিষতে পারেন।

প্রশ্নঃ আমি তেতুল খেতে পারি কি ?

উত্তরঃ হ্যাঁ আপনি তেতুল খেতে পারেন।  রান্নাকে টক স্বাদ প্রদান করার জন্য তেঁতুল দেওয়া হয়ে থাকে।  এর দ্বারা চাটনি, আচার প্রস্তুত হয় এবং এটি সাম্বরেও দেওয়া হয়ে থাকে। ভিটামিন  সি, যুক্ত তেঁতুল এ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এ পূর্ণ হয়।  এবং এটি শরীরের জন্যও ভালো হয়।

প্রশ্নঃ আদার ব্যবহার করতে পারি কি ?

উত্তরঃ হ্যাঁ, আপনি আদার ব্যবহার করতে পারেন। বৈদিক যুক থেকে এর  প্রয়োগ ঔষধি রূপে করা হচ্ছে।  বমি, মাথার যন্ত্রণা এবং বুকে সর্দি বসে যাওয়া, কলেরা, ডায়রিয়া, পেটের যন্ত্রণা এবং শিরা-উপশিরার বহু রোগের জন্য আদা অত্যন্ত লাভদায়ক হয়। এটি হচ্ছে একটি শক্তিশালী এ্যান্টি-অক্সিডেন্টস .. যার মধ্যে ক্যান্সার রোধক গুণও পাওয়া যায়।

প্রশ্নঃ আমি লবঙ্গ ব্যবহার করতে পারি কি ?

উত্তরঃ হ্যাঁ, আপনি লবঙ্গ ব্যবহার করতে পারেন। এতে ভোলাটাইল তেল পাওয়া যায়।  এটি উত্তেজক, এ্যান্টিসেপ্টিক, এ্যান্টি-স্পাসমোডিক, বায়ু দূরকারী এবং কফ নাশক হয়। এটি মেটাবোলিজমকেও  উত্তেজনা প্রদান করে।

প্রশ্নঃ আমি গোল মরিচ ব্যবহার করতে পারি কি ?

উত্তরঃ হ্যাঁ, আপনি গোলমরিচ ব্যবহার করতে পারেন।  এটি গন্ধযুক্ত উত্তেজক এবং খাদ্য পরিপাকে সাহায্যকারী হয়। একে মশলার রাজা বলা হয়।

 

প্রশ্নঃ আমি তরকারীতে তেজপাতা দিতে পারি কি ?

উত্তরঃ হ্যাঁ, আপনি তরকারীতে তেজপাতা ব্যবহার করতে পারেন।  এটাও একটি মশলা। ’ সাওল তেল’ এবং ক্যালোরী যুক্ত খাবার খেতে নিষেধ করে।  মোটা ব্যক্তিদের  মশলার ব্যাপারে কোন বাধা নিষেধ নেই। আপনি রান্নায় তেজপাত ব্যবহার করতে পারেন।

 

****** ******  *** **

(৩৪)

পানীয়

প্রশ্নঃ লো-ক্যালোরী ড্রিঙ্ক কাকে বলে ?

উত্তরঃ এটিকে কৃত্রিম মিষ্টান্ন দিয়ে তৈরি করা হয়। এটি ডায়াবেটিজ রোগী এবং অন্যান্য ব্যক্তিদের জন্যও ভালো হয়।  এটি গ্রহণ করলে দাঁত খারাপ হওয়ার বা ওজন বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে না। এত শিকর বাকর, খনিজ পদার্থ এবং জিনসেন প্রভৃতির প্রাকৃতিক রূপ থাকে.. কিন্তু এটি অন্যান্য ড্রিঙ্কের থেকে দামী হয়। এগুলি ফলের রসের থেকে সামান্যে বেশী মিষ্টি হয়।

 

প্রশ্নঃ আমি দুধের মধ্যে মাইলো, বোর্ণভিটা প্রভৃতি মেশাতে পারি কি ?

উত্তরঃ হ্যাঁ .. আপনি এই ধরনের স্বাস্থ্যবর্ধক ড্রিঙ্ক গ্রহণ করতে পারেন। এগুলো পুষ্টির ভান্ডার বলা যেতে পারে।   এগুলি গ্রহণ করার আগে আপনাকে সমস্ত বিষয় সম্পর্কে অবগত হতে হবে।  যদি কোন হেল্থ ড্রিঙ্কে ফ্যাটের পরিমাণ বেশী থাকে, তবে তা পান করবেন না।

 

প্রশ্নঃ আমি ‘ডায়েট পেপসী’ বা ‘ডায়েট কোক’ পান করতে পারি কি ?

উত্তরঃ হ্যাঁ,  আপনি এগুলি পান করতে পারেন। কৃত্রিম মিষ্টিত্বের কারণে এগুলোয় ক্যালোরী খুব কম পরিমাণে থাকে.. যাতে ওজন বৃদ্ধি পায় না।  কিন্তু এটিকে অভ্যাসে পরিণত করা করবেন না।